বাজরিগর পাখির ব্রিডিং কোর্স ও ঔষধ👍।How to complete your budgie breeding course | Budgiegar bird breeding course

Post by

আজকে আমরা আমাদের ব্লগ পোস্টটিতে আলোচনা করব যে বাজিগর পাখির ব্রিডিং এর পূর্বে কোন কোন ওষুধ ব্যবহার করা হয় এবং আপনারা আপনাদের পাখিদের কিভাবে ব্রিডিং করাতে পারেন। আর পাখিদের ব্রিডিং করাতে যেই ঔষধ এর প্রয়োজন সেইসব ওষুধগুলো নিয়েও আমরা আজকে কথা বলবো। যার ফলে পাখিকে ব্রিডিং এ দেওয়ার আগে আপনারা সেই সকল ওষুধ ব্যবহার করতে পারবেন।   

বাজ্রিগার পাখিকে ব্রিডিং এ দেওয়ার পূর্বে অবশ্যই যে ওষুধগুলো দিয়ে কোর্স করানো উচিত তাহলোঃ ১। ক্যালপ্লেক্স (Calplex) ২। হিপ্রাচোক অ্যামিনো (Hiprachok Amino) ৩। জিস-ভেট (Zis Vet) ও ৪। ই-সেল (E-sel) কারণ প্রত্যেক বাজিগর পাখিকে ব্রিডিং দেওয়ার জন্য প্রস্তুত করে নিতে হয় তাই এর জন্য এই ভিটামিন ও মিনারেল কোর্স গুলো পাখিকে করানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

পাখিকে ব্রিডিং এ দেওয়ার পূর্বে অবশ্যই ব্রিডিং কোর্স করানো দরকার কারণ দেখা যায় যখন পাখি ব্রিডিং করে মানে ডিম বাচ্চা করে ডিম দেয় তখন তার শরীর থেকে অনেকটা ভিটামিন ও মিনারেল ক্ষয় হয় যার ফলে পাখি অনেকটা দুর্বল হয়ে যায়।

আবার অনেক সময় এমনও দেখা যায় যে পাখি ব্রিডিং করেনা অর্থাৎ ব্রিডিং মুড এ আসতে চায় না বা আসলেও সহজে মেটিং করতে চায় না এগুলো সাধারণত পাখির শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন ও মিনারেল ঘাটতি থাকায় এই সমস্যা গুলো হয়ে থাকে।আর আপনার পাখির যদি এই সমস্যা গুলো থাকে তাহলে এই ব্লগ পোস্টটি আপনারই জন্য

আপনারা চাইলে আমাদের আর যে যে ব্লগ পোস্ট গুলো পড়তে পারেনঃ বাজরিগার পাখি পালন শুরু করার পূর্বে জেনে নিন এই ৮টি বিষয়

বাজরিগর পাখির ব্রিডিং কোর্স ও ঔষধ
বাজরিগর পাখির ব্রিডিং কোর্স ও ঔষধ

উপরে যে ৪টি মেডিসিনের ছবি দেওয়া আছে এইগুলো দিয়েই সাধারন্ত পাখিকে ব্রিডিং কোর্স করানো হয়।

ব্রিডিং এর জন্য পাখিকে ঔষধ দেওয়ার পদ্ধতিঃ

প্রথমে যেটা দেখতে পাচ্ছি সেটা হচ্ছে ক্যালপ্লেক্স (Calplex), এটা বলতে গেলে ক্যালসিয়ামের জন্য খুবই ভালো। পাখির শরীরে যখন ক্যালসিয়াম অভাব দেখা দেয় তখন আমরা পাখিকে এই ঔষধ দিয়ে থাকি। এই ঔষধটি ১লিটার পানিতে ২মিলি দিলেই হয়। আর এটি পাখির খাঁচা থেকে ৫/৬ ঘন্টা পর সরিয়ে ফেলতে হবে।

এরপর হিপ্রাচোক অ্যামিনো (Hiprachok Amino) এটা মাল্টিভিটামিন এর জন্য খুবই ভালো একটা ঔষধ এটা বাজারের সব দোকানে পাওয়া যায় না। কারণ এটি একটি বিদেশি ব্র্যান্ডের ঔষধ। এই হিপ্রাচোক আমিনো ১ লিটার পানিতে ১মিলি মিশিয়ে পাখিকে দিতে হবে। আর এটি পাখির খাঁচা থেকে ৫/৬ ঘন্টা পর সরিয়ে ফেলতে হবে।

তারপর তিন নম্বর যে ঔষধটি আছে সেটি হচ্ছে জিস-ভেট (Zis Vet) এটা সাধারণত ভিটামিন একমি কোম্পানির। এই ঔষধটি পাখির জিংক এর অভাব পূরণ করার জন্য ব্যাবহার করা হয়। জিস ভেট ১ লিটার পানিতে ২মিলি মিশিয়ে পাখিকে দিতে হয় আর ৫-৭ দিন ধরে এই কোর্সটা করানো লাগে।

এবং শেষেই আছে ই-সেল (E-sel) ভিটামিন ঔষধ। যেটা পাখিকে মেটিং এর প্রতি উদ্বুদ্ধ করে। এই ই-সেল ঔষধটিকে ১ লিটার পানির সাথে ১/২ মিলি মিশিয়ে দিতে হবে। এভাবে এই ঔষধ টিকে পানির সাথে মিশিয়ে পাখিকে ৩-৪ দিনের একটা কোর্স করানো লাগবে।

ক্যালপ্লেক্স, হিপ্রচক আমিনো এবং জিস-ভেট এই ৩টা ওষুধ দিয়েই কোর্স করবেন প্রথমে এবং তারপরে শেষে আলাদা করে ই-সেল এর একটা কোর্স করাবেন।

তাহলে আশা করা যায় ব্রিডিং এর রেজাল্টটা খুব ভালো আসবে এবং এই ঔষধ গুলো দেওয়ার কারনে পাখিও তাড়াতাড়ি ব্রিডিং করবে। আর যদি এটা না করাতে চান তাহলে ই-সেল ঐ তিনটা ওষুধের সাথে মিশিয়ে দিতে পারেন তবে এতে কোন ধরণের সমস্যা হয়না। তবে ই-সেলটা পড়ে দিলেই ভালো হয় কারণ মাল্টিভিটামিনের কোর্স এর সাথে ই-সেল না দিলেই ঔষধ বেশি কাজ করে।

তাই আগে এই ৩টা ঔষধ ক্যালপ্লেক্স, হিপ্রচক আমিনো, জিস-ভেট দিবেন। এদের ১টা কোর্স শেষ হওয়ার পর আপনারা আলাদা একটা ই-সেল এর কোর্স করাবেন এবং তারপর কোর্স গুলো শেষ হলে পাখির খাঁচায় পাখির হাড়ি দিয়ে দিবেন। তাহলেই পাখি ব্রিডিং করা শুরু করে দিবে। আর এই বিষয়ক আরও ব্লগ পড়তে আমাদের বিভিন্ন ব্লগ পোস্ট গুলো মনোযোগ সহকারে পড়ুনঃ  

Leave a comment